ecommerce order
  • Save
E-commerce

ইকমার্স স্টোরের অর্ডার সংখ্যা বাড়ানোর ৭টি কার্যকরী উপায়

বর্তমান বিশ্বে সবচাইতে বেশি যে ওয়েবসাইটগুলি ব্যবহার করা হয় তার মাঝে ইকমার্স ওয়েবসাইট পৃথিবীর প্রতিটি দেশে অনেক বেশি পরিমাণে ব্যবহার করা হয়। ইকমার্স স্টোরের অর্ডার এর মাধ্যমে ক্রেতাগণ খুব সহজেই নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যসমূহ পেতে পারেন ,আর বিক্রেতাগণ ও খুব সহজেই বিক্রি করতে পারেন ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী পণ্য সমূহ অত্যন্ত স্মার্ট প্রক্রিয়ায়।

ইকমার্স ওয়েবসাইটের কল্যাণে অল্প পুঁজি নিয়েই ব্যবসা করে সফল হচ্ছেন উদ্যোক্তারা ,পাশাপাশি অনেকেই তার সৌখিন ব্যবসা এখন অনলাইনে করতে পারছেন। আবার অনেকেই চাকুরির পাশাপাশি ইকমার্স ব্যবসায় নিযুক্ত হচ্ছেন। তবে ইকমার্স ব্যবসায় আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম আর নীতি অবশ্যই অবলম্বন করতে হবে, নতুবা আপনাকে এই অনলাইন ব্যবসার রণক্ষেত্রে পরাজয়ের স্বীকার হতে হবে। আপনার অনলাইনে ইকমার্স ব্যবসায় মূল লক্ষ্য হলো “ভিজিটর” । ভিজিটর যতো বেশি হবে ততো আপনার পণ্যের বিক্রয় হবার সম্ভাবনাও বেশি। চলুন দেখে নেয়া যাক কি কি উপায় অবলম্বনে আর কোন সতর্কতা অবলম্বনে আপনার ইকমার্স স্টোরের পণ্যের অর্ডার বাড়বে এবং ভিজিটর বাড়বে।

ওয়েবসাইট লিংক শেয়ারিং

লিংক শেয়ারিং বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই কারণে যে নতুন ভিজিটর চিনবে বা জানবে শুধুই আপনার ইকমার্স ওয়েবসাইট এর লিংক যতো বেশি সে ভিজিট করবে। মনে করুন আপনার একটি Facebook সোস্যাল পেইজ আছে এই পেইজের মাধ্যমে আপনি যদি আপনার ইকমার্স ওয়েবসাইটের লিংক শেয়ার করেন দেখবেন খুব সহজেই আপনার নিকটবর্তী মানুষ আপনার ইকমার্স সাইটটি ভিজিট করবেন। আবার LinkedIn, YouTube, Instagram সহ বেশকিছু সনামধন্য সোস্যাল সাইটগুলিতে আপনি যদি আপনার ইকমার্স সাইটটির লিংক শেয়ার করেন খুব তাড়াতাড়ি ই আপনার ভিজিটর বাড়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। এই ক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে কোন সোস্যাল সাইটে কোন টাইপ ভিজিটর আছে। নতুবা আপনার টার্গেট করা ভিজিটর সহজে মিলবে কম।

ইমেইলের মাধ্যমে ওয়েবসাইট লিংক শেয়ারিং

ওয়েবসাইট লিংক শেয়ার আপনি ইমেইলের মাধ্যমেও করতে পারেন। ইন্টারনেট সহজলভ্য হবার পরে থেকেই সকলেই ইমেইল ব্যবহার করে থাকেন। প্রায় সকল শিক্ষিত ব্যাক্তির নিকটে ব্যাক্তিগত ইমেইল একাউন্ট আছে এবং একই সাথে যারা অফিসে কর্মরত আছেন তাদের কাছে তাদের অফিসের ডোমেইন ভিত্তিক ইমেইল আছে। আমরা কম বেশি সকলেই নিজেদের মেইল ব্যবহার করে থাকি। সেক্ষেত্রে ইকমার্স ব্যবসায়ীরা তাদের টার্গেট করা কাসোমারদের খুব সহজেই ইমেইল করে তার ওয়েবসাইট লিংক শেয়ার করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে ইকমার্স ব্যবসায়ী নিজ কোম্পানির লোগো বা তার কোম্পানির পণ্য এর ছবি বা ভিডিও ব্যবহার করতে পারেন লিংক এর সাথে। দেখা যাবে টার্গেট করা কাস্টোমার খুব সহজেই মেইল খুললেই সেই ইকমার্স লিংকটিতে ক্লিক করে জেনে নিতে পারবেন সেই ইকমার্স সাইট সম্পর্কে এবং সেই সাইটের পণ্য সমূহ সম্পর্কে।

গ্রাহক সেবা সুনিশ্চিতকরণ

ভিজিটর যারা তারা শুধু আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করেই কি শেষ? আপনার প্রোডাক্ট কোয়ালিটি অনেক বেশি নির্ভর করে আপনার ইকমার্স ব্যবসার জন্য। আর যে ক্রয় করবে সে অবশ্যই খেয়াল করবে পণ্য এর পাশাপাশি আপনার ইকমার্স সাইটের মাধ্যমে আপনি কতটুকু আপনার গ্রাহককে সেবা দিচ্ছেন। গ্রাহক সন্তুষ্ট হলে আপনার মাধ্যমেই বারবার পণ্য ক্রয় করবে এবং আপনিও সেক্ষেত্রে লাভবান হবেন। এইজন্য অবশ্যই উন্নতমানের গ্রাহকসেবা সুনিশ্চিত কড়তেই হবে আর পণ্যের কোয়ালিটি কখনোই খারাপ করা যাবেনা। আর আপনার ওয়েবসাইট কেও অনেক বেশি উন্নত রাখতে আপনার খেয়াল রাখতে হবে যে কত তাড়াতাড়ি একটা অর্ডার করতে পারছে ক্রেতাগন! একই সাথে খেয়াল রাখতে হবে কোনো রকমের টেকনিক্যাল প্রবলেম হলে অবশ্যই আপনার সেই টেকনিক্যাল প্রবলেম সমাধান জরুরী সে জন্য অবশ্যই আপনি যার মাধ্যমে ইকমার্স সাইট বানিয়েছেন তার সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখবেন একই সাথে ডোমেইন, হোস্টিং যার কাছে নিবেন তাদের সাথেও সুসম্পর্ক বজায় রাখলে দেখবেন তারা আপনার বিপদের সময়ে খুব তাড়াতাড়ি সমস্যার সমাধান করে দেবেন।

Digital Payment

Payment Procedure এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা বহন করে ইকমার্স ব্যবসায়ী আর ক্রেতাদের জন্য। কারণ ডিজিটাল এই সময়ে ক্রেতাগণ কোন সিস্টেমে পেমেন্ট করছেন সেটা আপনাকে খেয়াল রাখতেই হবে। বাংলাদেশ এ bkash, Rocket, Nagad আর পাশাপাশি অনলাইন ব্যাংকিং সিস্টেম এর ক্ষেত্রে ডাচ বাংলা ব্যাংক এর নেক্সাস পে সহ অনেক রকম ডিজিটাল পেমেন্ট এসেছে। এক্ষেত্রে আপনার সুবিধা মত আর গ্রাহকের সুবিধা ভেবে সেই পেমেন্ট রাখা জরুরী আপনার ইকমার্স সাইটে। অনেকে আবার ক্যাশ পেমেন্টেও আগ্রহ প্রকাশ করে থাকেন। সে ক্ষেত্রে কুরিয়ার পারসোন কে সতর্ক থাকতে হবে পেমেন্ট নেয়া দেয়ার ক্ষেত্রে।

কন্টেন্ট কোয়ালিটি

কন্টেন্ট এর কোয়ালিটি এর দিকে একজন ইকমার্স ব্যবসায়ীকে অনেক বেশি নজর রাখা জরুরী। ধরুন একটি নতুন পণ্য এসেছে এবং সেটি সাধারণ একটা ছবি আর খুব সাধারণ কিছু তথ্য আপনি ব্যবহার করছেন। এই বিষয়ে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে কারণ নতুন এই পণ্যটি অনেক মুল্যবান তা বোঝাতে আপনার দরকার হাই কোয়ালিটি ছবি এবং মানসম্মত কন্টেন্ট! ভিডিও দিলে অবশ্যই ভালো মানের ভিডিও আর রেজ্যুলেশন যেনো ব্যবহার করা হয়, এই ক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে ভিজিটর মোবাইল ব্যবহার কারী বা ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ ব্যবহারকারী হতে পারেন।

প্রোডাক্ট কোয়ালিটি

ইকমার্স ব্যবসার জন্য জরুরী আরেকটি বিষয় প্রোডাক্ট কোয়ালিটি। প্রোডাক্ট যতো ভালোমানের হবে গ্রাহকের আগ্রহ ততো বেশি বাড়বে আর ইকমার্স সাইটটির পরিচিতি বৃদ্ধি বাড়বে। প্রোডাক্ট কোয়ালিটি নিয়ে প্রায় সময়ই অনেক বেশি মতামত থাকবে। আপনার এই জন্য দরকার নোট করে রাখা কোন সময় প্রোডাক্টের কেমন গ্রাহকের সমস্যায় পড়তে হয়েছে। নেগেটিভ রিভিউ পেয়ে হতাশ হবেন না সেজন্য ধৈর্য্য ধারণ করা হবে বুদ্ধিমানের কাজ। কিভাবে গ্রাহক এর মন জয় করা যায় সেটা হবে আপনার গুরুদায়িত্ব। আর পর্যাপ্ত প্রোডাক্ট স্টকে আছে কিনা সেটাও বারবার আপনাকে জেনে রাখতে হবে নতুবা আপনাকেই সেই প্রোডাক্ট সঠিক সময়ে ডেলিভারি সমস্যায় পড়তে হবে। কারণ ক্রেতাদের কাছে কত তাড়াতাড়ি প্রোডাক্ট যাবে এটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ নতুবা অর্ডার ক্যান্সেল হয়ে গেলে ক্ষতি আপনার। একই সাথে মনে রাখতে হবে প্রোডাক্ট যদি ভেঙ্গে যায় বা নষ্ট হয়ে যায় গ্রাহকের হাতে যাওয়ার মুহূর্তে সেই রিস্ক রাখার মত মানসিকতাও রাখা জরুরী। সেজন্য যারা প্রোডাক্ট প্যাকেজিং করছেন তাদের সাথে মতামত আদান প্রাদান করুন আরো কিভাবে উন্নত উপায়ে প্রোডাক্ট প্যাকেজিং সম্ভব। আর একইসাথে প্রোডাক্ট যিনি ডেলিয়ার করবে বা যে প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ডেলিভার করবেন তাদের সাথে আলোচনা করবেন কত ভালোভাবে ডেলিভার দেয়া সম্ভব এবং তাদের সাথেও ভালো সম্পর্ক বিদ্যমান রাখবেন দেখবেন আপনার প্রোডাক্ট বেশ ভালোভাবে প্যাকেজিং আর ডেলিভাইর হবে।

ডিস্কাউন্ট অফার

আমাদের বাংলাদেশে ঈদ উল ফিতর, ঈদ উল আযহা, পহেলা বৈশাখ, পূজা অনেক রকমের বিশেষ সময় আসে যে সময় ক্রেতাগণ খুব আগ্রহ নিয়ে তাদের পছন্দের প্রোডাক্ট এখন অনলাইনের মাধ্যমেই কেনার ইচ্ছা পোষণ করে থাকেন। এই সময়ে অনেক বেশি পণ্য ক্রয় একবারেই করে থাকেন। এরকম সিজনে এ আপনি যদি কিছু কম দামে পণ্য বান্ডেল আকারে বেশি করে বিক্রি করার অফার দেন তবে ক্রেতাগণ আরো বেশি আগ্রহী হন প্রোডাক্ট ক্রয়ের জন্য। যেমন ধরুনঃ ১টি মানিব্যাগ সাধারণ সময়ে বিক্রি করেন ৩০০ টাকায়, আর আপনার প্রফিট হয় ১০০ টাকা কিন্তু সিজনাল সময়ে যদি ৩টি মানিব্যাগ বিক্রি করার অফার করেন ২৫০ টাকায় তাহলে আপনার প্রফিট হবে ১৫০ তাকা। এইভাবে আপনি যদি প্রতিদিন ১৫টি মানিব্যাগ বিক্রি করেন ৫বান্ডেল এ তাহলে আপনার প্রফিট হবে ৭৫০ টাকা। এতে আপনার বিক্রয় বাড়বে একই সাথে আপনার ব্যবসার প্রসার ঘটবে।

একইসাথে আপনার ওয়েবসাইটের পণ্য মার্কেটিং করানোর জন্য প্রয়োজন হবে ডিজিটাল মার্কেটিং যারা করে থাকেন। এক্ষেত্রে আপনি সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার, SEO Specialist এর যারা কাজ করে থাকেন তাদের সাথে যোগাযোগ করলে আপনার সমাধান খুব সহজেই তারা সমাধান করে দেবেন একই সাথে আপনার পণ্য কোন বয়সের মানুষ বা কোন এলাকার মানুষের বেশি প্রয়োজন সেটাও জানতে পারবেন বেশি করে তাদের মাধ্যমে। তবে এই সকল সমাধানই পাবেন Cybery এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *